বিশ্বনাথের প্রথম অনলাইন পত্রিকা

বিশ্বনাথে প্রবাসী দুই ভাইয়ের বিরোধ : আদালতের আদেশ ভঙ্গের চেষ্টা

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেটের বিশ্বনাথে জায়গা নিয়ে প্রবাসী দুই ভাইয়ের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। এনিয়ে আদালতে বিচারাধীন রয়েছে একাধিক মামলা। আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে এক পক্ষের লোকজনকে জোরপূর্ব বিরোধপূর্ণ বসতঘরে প্রবেশের চেষ্টা করা হচ্ছে বলে থানা পুলিশের বিরুদ্ধের অপর পক্ষের লোকজন অখিভযোগ করেছেন।
জানা গেছে, উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের মৌলভীরগাঁও গ্রামের যুক্তরাজ্য প্রবাসী ফজর আলী ও তার ভাই সৌদি আরব প্রবাসী আজর আলীর দীর্ঘদিন ধরে জায়গা-জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। বাড়িতে নির্মিত দালান বসতঘরের দুটি ইউনিটে দুই ভাইয়ের পরিবার একসময় বসবাস করেন। তাদের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হলে ২০১৭ সালে তাদের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হলে সৌদি আরব প্রবাসী আজর আলীর ১ম স্ত্রী আনোয়ারা বেগম বাবার বাড়ি চলে গেলে তার ঘর দখলে নেন ২য় স্ত্রী নাছিমা বেগম। পরবর্তীতে স্বামী আজর আলীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ হলে বাড়ি ছেড়ে চলে যান নাছিমা বেগমও। তখন ওই ঘর তালাবদ্ধ করে রাখেন যুক্তরাজ্য প্রবাসী ফজর আলী।
এরপর ২০১৭ সালের ৩০ নভেম্বর সহকারী জজ আদালতে ফজর আলীর স্ত্রী মনোয়ারা বেগমের পক্ষে নয়াছ উদ্দিন বাদী হয়ে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে আদালতে স্বত্ত্ব মোকদ্দমা (৬৯/২০১৭ইং) দায়ের করেন। পরবর্তীতে ২০১৮ সালের ৮মার্চ ফৌজদারী কার্যবিধির ১৪৪ ধারা জারির আবেদন জানিয়ে আরেকটি বিবিধ মোকদ্দমা (৬/২০১৮ইং) দায়ের করেন ফজর আলী পক্ষ। এর প্রেক্ষিতে আদালতের আদেশের ভিত্ত্বিতে বিরোধপূর্ণ ভূমিতে উভয় পক্ষ স্ব স্ব অবস্থানে থেকে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে এবং ভূমি জবর দখল বা কোন প্রকার পরিবর্তন-পরিবর্ধন করা থেকে বিরত থাকতে ১৪৪ ধারা জারি করে ২০১৮ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি উভয় পক্ষকে নোটিশ প্রদান করেন বিশ্বনাথ থানার এসআই মিজানুর রহমান। বিবিধ মোকদ্দমার প্রেক্ষিতে ২০১৮ সালের ৩মার্চ বিরোধপূর্ণ ভূমিতে স্থিতাবস্থার আদেশ দেন আদালত। তখন থেকে বিরোধপূর্ণ ওই বসতঘরটি তালাবদ্ধ রয়েছে। অন্যদিকে, ২০১৮ সালের ২৭ জুন ফজর আলীর পক্ষের বিরুদ্ধে আজর আলীর স্ত্রী আনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে ফৌজদারী আইনে একটি মামলা দায়ের করেন (জিআর- ১৪৬/২০১৮ইং)। পরবর্তীতে ২০১৮ সালের ২আগস্ট আজর আলী বাদী হয়ে যুগ্ম জেলা জজ ৩য় আদালতে একটি স্বত্ব (বাটোয়ারা) মামলা দায়ের করেন (মোকদ্দমা নং-২৮৮/২০১৮ইং)। এসকল মামলা বর্তমানে আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।
মনোয়ারা বেগমের পক্ষের নয়াছ উদ্দিন অভিযোগ করেন, আদালতে মামলা বিচারাধীন থাকাবস্থায়, আদালতের আদের্শ অমান্য করে গত বুধবার দুপুরে প্রতিপক্ষের লোকজনকে জোরপূর্বক বিরোধপূর্ণ বসতঘরে প্রবশে করানোর চেষ্টা করেন থানার এসআই মিজানুর রহমান। এসময় তারা বাঁধা দিলে একপর্যায়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন প্রতিপক্ষের লোকজন ও থানা পুলিশ।
তবে পুলিশের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সঠিক নয় দাবি করে থানার এসআই মিজানুর রহমান বলেন, আজর আলীর স্ত্রী আনোয়ার বেগম ঘরে প্রবেশ করার জন্য বাড়িতে গেছেন। এই সংবাদ পেয়ে যাতে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় থাকে সেজন্য আমরা ঘটনাস্থলে যাই।


Endofcontent

Endofcontent
You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!