জগন্নাথপুরে সৎ পিতা কর্তৃক মেয়ে ধর্ষণ: এলাকায় তোলপাড়, ধর্ষক গ্রেফতার

বিশ্বনাথ নিউজ ২৪ ডট কম :: জুলাই - ২৯ - ২০১৬ | ১২: ২৪ পূর্বাহ্ণ | সংবাদটি 2623 বার পঠিত

images (1)মো: আব্দুল হাই, জগন্নাথপুর :: জগন্নাথপুরের পল্লীতে সৎ পিতা কর্তৃক সপ্তম শ্রেনীতে পড়–য়া ১৩ বছরের কিশোরী মেয়েকে ধর্ষনের ঘটনায় পুলিশ লম্পট নুর মিয়া (৪২) কে পুলিশ গ্রেফতার করে বৃহস্পতিবার আদালতে প্রেরন করেছে। ধর্ষিতা কিশোরীকে পুলিশ ডাক্তারী পরীক্ষা শেষে তার মামা নুরুল হকের হেফাজতে দেয়া হয়েছে। চাঞ্চল্যকর ধর্ষনের ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের মোল্লারগাঁও গ্রামে। ধর্ষিতার মামা মামলার বাদি কলকলিয়া ইউনিয়নের পাড়ারগাঁও গ্রামের আপ্তাব আলীর পুত্র নুরুল হক ধর্ষনের ঘটনার বিষয়ে জানান, তাদের সাত ভাইয়ের একমাত্র বোন হাওয়ারুন বেগমকে প্রায় ১৫বছর পূর্বে কলকলিয়া ইউনিয়নের সাদিপুর গ্রামের আর্শ্বাদ আলীর কাছে বিয়ে দেন। আর্শ্বাদ আলী ঐরশে ধর্ষিতা কিশোরীর জন্ম হয়। হাওয়ারুন বেগম প্রায় ৮বছর আর্শ্বাদ আলীর সাথে সংসার জীবন কাটালে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কলোহ সৃষ্টি হওয়া তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। হাওয়ারুন বেগম তার ধর্ষিতা কন্যাকে নিয়ে পিত্রালয়ে বসবাস করে। মামলার বাদি নুরুল হক জানান, প্রায় ৬বছর পূর্বে স্বামী পরিত্যক্তা তার বোন হাওয়ারুন বেগমকে দিরাই উপজেলার ভাটিপাগা ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামের আব্দুল কাদিরের পুত্র নুর মিয়ার কাছে দ্বিতীয় বিবাহ দেন। হাওয়ারুন বেগমের দ্বিতীয় বিবাহের স্বামী নুর মিয়া গৃহস্থ চাকুরে হওয়ায় বিয়ের পর থেকে কলকলিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সাজ্জাদুর রহমানের বাড়িতে ধর্ষিতা কিশোরী মেয়ে সহ হাওয়ারুন স্বামী সংসারে বসবাস করছিল। নুর মিয়ার আচার আচরনে হাওয়ারুন সন্তুষ্ট না হওয়া তার ঐরশে কোন সন্তান নেয়নি। হাওয়ারুন তার একমাত্র মেয়েকে প্রাইমারীর স্কুলের গন্ডি পেরিয়ে গ্রামের পাড়ারগাঁও আইডিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬ষ্ট শ্রেনীতে মেয়েকে ভর্তি করান। বর্তমানে ধর্ষিতা কিশোরী ঐ মেয়ে স্কুলের ৭ম শ্রেণীতে অধ্যায়নরত। এদিকে হাওয়ারুন বেগমের দ্বিতীয় স্বামী নুর মিয়া টাকা পয়সা জমিয়ে কলকলিয়া ইউনিয়নের মোল্লারগাঁও গ্রামে এক খন্ড জমি কিনে সেখানে নিজস্ব বাড়ি তৈরী করে। বাড়ি তৈরীর পর চলতি বছরের এপ্রিল মাসে ধর্ষক নুর মিয়া তার স্ত্রী হাওয়ারুন বেগম ও ধর্ষিতা কিশোরীসহ মোল্লারগাঁও গ্রামে নিজ বাড়িতে উঠে। কিছুদিন পর অর্থাত মে মাসের মাঝামাঝি সময়ে হাওয়ারুন বেগম তার একমাত্র কন্যা ধর্ষিতা কিশোরীকে ত্র দ্বিতীয় স্বামী নুর মিয়ার কাছে রেখে গৃহকর্মী হিসেবে সৈৗদি আরবে পাড়ি জমান। হাওয়ারুন বেগম তার মেয়ের লেখা পড়াসহ সব সময় সুনজরে রাখতে তার স্বামী ধর্ষক নুর মিয়াকে অনুরোধ করে যান। মামলার বাদি ধর্ষিতার মামা নুরুল হক কান্না জড়িত কন্ঠে জানান, আমাদের একমাত্র ভাগ্নী স্কুলে সপ্তম শ্রেনীতে পড়ছে এবং তার মা হাওয়ারুন বেগম সৌদি আরবে থাকায় মাঝে মধ্যে আমরা দেখা শুনা করে থাকি। সম্প্রতি আমার বোন হাওয়ারুন সৌদি আরবে প্রথম মাসের বেতন পেয়ে ২০হাজার টাকা তার স্বামী নুর মিয়ার কাছে পাঠায় এবং এই টাকা থেকে শাহজালাল (র:) ও শাহপরান (র:) মাজারে তার মানতের টাকা পৌছে দেয়ার জন্য মোবাইল ফোনে জানায়। হাওয়ারুনের লম্পট স্বামী নুর মিয়া টাকা পেয়ে তার সৎ কিশোরী মেয়েকে সাথে নিয়ে রবিবার ২৪ জুলাই প্রথমে সুনামগঞ্জ শহরে একটি আবাসিক হোটেলে উঠে এবং ঐদিন রাতভর সে তার সৎ মেয়েকে ধর্ষন করে। পরদিন সোমবার ২৫জুলাই সিলেট শহরে যায় এবং কিশোরীকে একটি মোবাইল ফোন কিনে দেয়। কিশোরীর মন জয় করতে লম্পট সত পিতা নুর মিয়া অনেক কিছু কিনে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়। এসময় কিশোরী লজ্জায় কিছু না বললেও অসহায় হয়ে পড়ে। ঐদিন সিলেট শহরে একটি আবাসিক হোটেলে তারা অবস্থান করে। সেখানে লম্পট নুর মিয়া রাতভর সত মেয়েকে ধর্ষন করে। মঙ্গলবার দুপুরে সিলেট শহর থেকে বাড়ির উদ্দেশ্যে জগন্নাথপুর পৌর শহরে এসে পৌছলে ধর্ষিতা কিশোরীর প্রচন্ড রক্তক্ষরনে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। সাথে সাথে লম্পট নুর মিয়া জগন্নাথপুর পশ্চিম বাজারে চাউলের গলির একটি ফার্মেসীতে ধর্ষিতা কিশোরীকে সেলাইন পুশ করা হলে সে কিছুটা সুস্থ হলে লম্পট নুর মিয়া তার মোল্লারগাঁও গ্রামে তার নিজ বাড়িতে নিয়ে যায়। ধর্ষিতা কিশোরী ঘটনাটি কাউকে না জানানোর জন্য লম্পট সৎ পিতা নুর মিয়া তাকে প্রানে হত্যার হুমকি দেয়। এক পর্যায়ে ধর্ষিতা কিশোরীকে বেধরক পেটায়। পরদিন বুধবার ২৭ জুলাই দুপুরে ধর্ষিতা কিশোরীকে লম্পট পিতা নুর মিয়া চিকিতসার জন্য কলকলিয়া বাজারে নিয়ে আসে। এফাকে ধর্ষিতা কিশোরী রাস্তা থেকে দৌড়ে পাড়ারগাঁও গ্রামে তার মামা নুরুল হকের বাড়িতে গিয়ে উঠে। ধর্ষিতা কিশোরীর চোখ দিয়ে অঝর ধারায় পানি ঝড়তে দেখে মামা নুরুল হক এবং বৃদ্ধা নানী রাজবানু কি হয়েছে জানতে চাইলে ধর্ষিতা কিশোরী হাউ মাউ করে কেঁধে উঠে এবং পাষন্ড লম্পট ধর্ষক নুর মিয়া কর্তৃক দুটি রাতের পাশবিক নির্যাতনের সমস্ত ঘটনা বর্ননা করে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। বিষয়টি ধর্ষিতার মামা নুরুল হক উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ হুমায়ুন কবিরকে জানায়। পরে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়েরের পর ওসি তদন্ত খান মো: মাইনুল জাকিরের নেতৃত্বে এস আই আব্দুল কাদেরসহ পুলিশদল বুধবার রাত সাড়ে ৯টায় মোল্লারগাঁও গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে লম্পট ধর্ষক নুর মিয়াকে গ্রেফতার করে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই আব্দুল কাদের জানান, বৃহস্পতিবার ২৮জুলাই ধর্ষক নুর মিয়াকে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে এবং ধর্ষিতা কিশোরীর ডাক্তারী পরীক্ষা শেষে মামলার বাদি তার মামা নুরুল হকের হেফাজতে দেয়া হয়েছে। এদিকে চাঞ্চল্যকর সৎ পিতা কর্তৃক মেয়েকে ধর্ষনের ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

আরো সংবাদ

বিশ্বনাথে এবার উন্নয়ন ইস্যুতেই ভোট দিবেন ভোটাররা

বিশ্বনাথে ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্রের ব্যানারে সরব বিএনপি

বিশ্বনাথে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ফুটবল টুর্ণামেন্ট সম্পন্ন

বিশ্বনাথে নির্বাচনী আচরণবিধি অবহতিকরণ ও মতবিনিময় সভা

বিশ্বনাথ উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

বিশ্বনাথে দৌলতপুর ইসলামিয়া দারুচ্ছুন্নাহ মাদ্রাসার বার্ষিক জলসা ও পাগড়ী বিতরণ

বিশ্বনাথে চালককে ছুরিকাঘাত করে টমটম ছিনতাই

বিশ্বনাথে সাংবাদিকদের সাথে চেয়ারম্যান প্রার্থী গিয়াস উদ্দিনের মতবিনিময়

বালাগঞ্জ ইউনিয়ন কৃষক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন সম্পন্ন

বিশ্বনাথে খাজাঞ্চী ইউনিয়ন ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে’র শীতবস্ত্র বিতরণ

বিশ্বনাথে একদিনে ৫৪৩৮ শিক্ষার্থীকে করোনার ভ্যাকসিন প্রদান

খাজাঞ্চী ইউনিয়নে নৌকার গণজোয়ার

সর্বশেষ সংবাদ

বিশ্বনাথে এবার উন্নয়ন ইস্যুতেই ভোট দিবেন ভোটাররা

বিশ্বনাথে ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্রের ব্যানারে সরব বিএনপি

বিশ্বনাথে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ফুটবল টুর্ণামেন্ট সম্পন্ন

বিশ্বনাথে নির্বাচনী আচরণবিধি অবহতিকরণ ও মতবিনিময় সভা

বিশ্বনাথ উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

বিশ্বনাথে দৌলতপুর ইসলামিয়া দারুচ্ছুন্নাহ মাদ্রাসার বার্ষিক জলসা ও পাগড়ী বিতরণ

বিশ্বনাথে চালককে ছুরিকাঘাত করে টমটম ছিনতাই

বিশ্বনাথে সাংবাদিকদের সাথে চেয়ারম্যান প্রার্থী গিয়াস উদ্দিনের মতবিনিময়

বালাগঞ্জ ইউনিয়ন কৃষক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন সম্পন্ন

বিশ্বনাথে খাজাঞ্চী ইউনিয়ন ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে’র শীতবস্ত্র বিতরণ

বিশ্বনাথে একদিনে ৫৪৩৮ শিক্ষার্থীকে করোনার ভ্যাকসিন প্রদান

খাজাঞ্চী ইউনিয়নে নৌকার গণজোয়ার