জঙ্গি হামলার আশঙ্কা সিলেটে!

বিশ্বনাথ নিউজ ২৪ ডট কম :: জানুয়ারি - ১১ - ২০১৬ | ৫: ৩১ অপরাহ্ণ | সংবাদটি 523 বার পঠিত

sm6_39222রফিকুল ইসলাম কামাল :: বড় ধরনের জঙ্গি হামলা হতে পারে বৃহত্তর সিলেটের যে কোনো স্থানে। মসজিদ, মাদরাসা, শিয়া সম্প্রদায়, ওয়াজ মাহফিল, জুম’আর নামাজে জঙ্গিরা হামলা চালাতে পারে। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে এমন আশঙ্কা করছেন পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এক্ষেত্রে জঙ্গিরা অত্যাধুনিক ডিভাইস ব্যবহার করতে পারে বলেও পুলিশের ধারণা।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঢাকায় তাজিয়া মিছিলে হামলা, বগুড়া ও দিনাজপুরে আহমদিয়া মসজিদ ও ইসকন মন্দিরে হামলার পর এবার সিলেট টার্গেট করতে পারে জঙ্গিরা। এর আগেও সিলেটে বিভিন্ন হামলার ঘটনায় জঙ্গি সম্পৃক্ততা পেয়েছে পুলিশ।

২০০৪ সালের ২১ মে শাহজালাল (রহ.) এর মাজারে তৎকালীন ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর উপর বোমা হামলা, ওই বছরের ৭ অগাস্ট নগরীর তালতলাস্থ গুলশান সেন্টারে বোমা হামলায় নিহত হন আওয়ামী লীগ নেতা ইব্রাহিম আলী, ২৪ ডিসেম্বর তাঁতীপাড়ায় আওয়ামী লীগ নেত্রী ও সাবেক সাংসদ জেবুন্নেছা হকের বাসায় অনুষ্ঠিত মহিলা আওয়ামী লীগের সভায় বোমা হামলা, ২০০৫ সালের ১৭ অগাস্ট দেশের অন্যান্য জেলার পাশাপাশি সিলেটের ২৯টি স্থানে একযোগে সিরিজ বোমা হামলা, গত বছরের ১২ মে নগরীর সুবিদবাজারে ব্লগার অনন্ত বিজয় দাশকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় জঙ্গি সম্পৃক্ততা খুঁজে পায় পুলিশ।

এসব কারণে এবং সাম্প্রতিক সময়ে দেশের বিভিন্ন জায়গায় বোমা হামলার ঘটনায় জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা থাকায় গোয়েন্দা সংস্থার তথ্যের ভিত্তিতে জঙ্গি হামলার পরবর্তী টার্গেট সিলেট হতে পারে বলে ধারণা করছেন পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

পুলিশের সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি মিজানুর রহমান বলেন, ‘সিলেটে জঙ্গিদের হামলার পরিকল্পনার নানা তথ্য পুলিশের কাছে রয়েছে। জঙ্গিদের পরিকল্পনার মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন মাজার সংলগ্ন মসজিদ, শিয়া সম্প্রদায়ের মসজিদ, ওয়াজ মাহফিল এবং শুক্রবার জুম’আর নামাজ চলাকালে হামলা করা।’

জঙ্গিরা ল্যাপটপে করে অত্যাধুনিক কোনো ডিভাইসের মাধ্যমে হামলা চালাতে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ। জঙ্গিরা তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর ডিভাইস ব্যবহারে সক্ষম বলে পুলিশের ধারণা। সাম্প্রতিক সময়ে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে পুরনো ল্যাপটপ সংগ্রহের চেষ্টা চালাচ্ছে জঙ্গিরা, এমনটাও বলছেন সংশ্লিষ্টরা।

ডিআইজি মিজানুর রহমান বলেন, ‘ল্যাপটপের মাধ্যমে হামলা হতে পারে বলে গোয়েন্দারা তথ্য পেয়েছেন। জঙ্গিরা পুরনো ল্যাপটপ সংগ্রহের চেষ্টা চালাচ্ছে।’

জঙ্গি হামলার পরিকল্পনার ভিত্তিতে গোয়েন্দা সংস্থা, পুলিশ, র‌্যাবসহ সকল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সভা করে সবাইকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তবে পুলিশের কর্মকর্তারা বলছেন, তাদের একার পক্ষে জঙ্গি কর্মকান্ড ঠেকানো সম্ভব নয়। এজন্য সম্মিলিত প্রচেষ্টা প্রয়োজন।

সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি মিজানুর রহমান বলেন, ‘ইন্টিলিজেন্স এজেন্সির মাধ্যমে সভা করে আমরা সবাইকে সতর্ক করেছি। তবে জঙ্গিদের রুখতে পুলিশের পাশাপাশি জনগণের সচেতনতাও প্রয়োজন।’

মসজিদ, মাদরাসা, মাজার, মন্দির, গির্জা তথা কোনো ধর্মীয় উপসনালয়ে ব্যাগ কিংবা ল্যাপটপ হাতে কোনো অপরিচিত ব্যক্তিকে প্রবেশ করতে দেয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন তিনি।

এদিকে জঙ্গিদের পেছনে অর্থায়নের বিষয়টিও গোয়েন্দাদের তথ্যের ভিত্তিতে ওঠে এসেছে বলেও জানিয়েছেন ডিআইজি মিজান। জঙ্গিদের অর্থায়নের জন্য বিভিন্ন এনজিও ও দেশ-বিদেশি কিছু সংস্থাকে নজরদারি করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে জঙ্গিরা বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী শিক্ষার্থীদের টার্গেট করে তাদের দলে নিতে তৎপরতা চালাচ্ছে বলে গোয়েন্দা তথ্যে ওঠে এসেছে। এজন্য বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কাউন্সিলিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুলিশ প্রশাসন।

ডিআইজি মিজান বলেন, ‘জঙ্গিগোষ্ঠী বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য-প্রযুক্তিতে মেধাবী শিক্ষার্থীদের টার্গেট করে ইসলামের দোহাই দিয়ে তাদের বিভ্রান্ত করছে। এজন্য বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সচেতনতার জন্য শিগগরিই আমরা তাদের নিয়ে কাউন্সিলিং করবো।’

এদিকে জঙ্গি কর্মকান্ড রুখতে ইমাম, আলেম ও মাশায়েখদের সাথে গত কয়েকদিন ধরে ধারাবাহিকভাবে মতবিনিময় সভার আয়োজন করে আসছে পুলিশ প্রশাসন। এসব সভায় ইমাম, মাশায়েখদের মসজিদ, মাদরাসায় সিসিটিভি লাগানোর জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে আহবান জানানো হচ্ছে। এছাড়া ইমামদেরকে জঙ্গিবাদ সম্পর্কে সাধারণ মানুষকে সতর্ক করার কথাও বলা হচ্ছে।

সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি মিজানুর রহমান বলেন, ‘জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলায় আলেম-উলামাদের সম্পৃক্ত করা ও জঙ্গি তৎপরতা সম্পর্কে তাদের বাড়তি সতর্ক করতেই তাদের সাথে মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হচ্ছে।’

সিলেটের পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা বলেন, ‘সিলেট অঞ্চলে প্রায় ১৯ হাজার মসজিদ, ৩০ হাজার মাদরাসা এবং ৫ শতাধিক মাজার রয়েছে। এসব ধর্মীয় স্থাপনার নিজস্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেই। পুলিশের পাশাপাশি এগুলোতে নিজস্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে।’

আরো সংবাদ

খাজাঞ্চী ইউনিয়নে বিশ্বনাথ প্রবাসী কল্যাণ সমিতি ইউএসএ’র অর্থ বিতরণ

লামাকাজী ইউনিয়নে বিশ্বনাথ প্রবাসী কল্যাণ সমিতি ইউএসএ’র অর্থ বিতরণ

বিশ্বনাথে স্বেচ্ছাসেবক দলের সভা, জেলা কমিটিকে অভিনন্দন

বিশ্বনাথ-জগন্নাথপুর সড়ক এখন ‘গলার কাঁটা’

বিশ্বনাথে ১৫ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার

রামপাশা ইউনিয়নে বিশ্বনাথ প্রবাসী কল্যাণ সমিতি ইউএসএ’র অর্থ বিতরণ

গলায় ছুরি চালিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

দৌলতপুর ইউনিয়নে বিশ্বনাথ প্রবাসী কল্যাণ সমিতি ইউএসএ’র অর্থ বিতরণ

দশঘর ইউনিয়নে বিশ্বনাথ প্রবাসী কল্যাণ সমিতি ইউএসএ’র অর্থ বিতরণ

দেওকলস ইউনিয়নে ‘বিশ্বনাথ প্রবাসী কল্যাণ সমিতি ইউএসএ’র অর্থ বিতরণ

বিশ্বনাথে ভাড়া বৃদ্ধি নিয়ে অপপ্রচারের প্রতিবাদে সভা

অলংকারী ইউনিয়নে বিশ্বনাথ প্রবাসী কল্যাণ সমিতি’র নগদ অর্থ বিতরণ

সর্বশেষ সংবাদ

খাজাঞ্চী ইউনিয়নে বিশ্বনাথ প্রবাসী কল্যাণ সমিতি ইউএসএ’র অর্থ বিতরণ

লামাকাজী ইউনিয়নে বিশ্বনাথ প্রবাসী কল্যাণ সমিতি ইউএসএ’র অর্থ বিতরণ

বিশ্বনাথে স্বেচ্ছাসেবক দলের সভা, জেলা কমিটিকে অভিনন্দন

বিশ্বনাথ-জগন্নাথপুর সড়ক এখন ‘গলার কাঁটা’

বিশ্বনাথে ১৫ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার

রামপাশা ইউনিয়নে বিশ্বনাথ প্রবাসী কল্যাণ সমিতি ইউএসএ’র অর্থ বিতরণ

গলায় ছুরি চালিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

দৌলতপুর ইউনিয়নে বিশ্বনাথ প্রবাসী কল্যাণ সমিতি ইউএসএ’র অর্থ বিতরণ

দশঘর ইউনিয়নে বিশ্বনাথ প্রবাসী কল্যাণ সমিতি ইউএসএ’র অর্থ বিতরণ

দেওকলস ইউনিয়নে ‘বিশ্বনাথ প্রবাসী কল্যাণ সমিতি ইউএসএ’র অর্থ বিতরণ

বিশ্বনাথে ভাড়া বৃদ্ধি নিয়ে অপপ্রচারের প্রতিবাদে সভা

অলংকারী ইউনিয়নে বিশ্বনাথ প্রবাসী কল্যাণ সমিতি’র নগদ অর্থ বিতরণ