পঙ্কজের গায়ে সোনার জামা

বিশ্বনাথ নিউজ ২৪ ডট কম :: আগস্ট - ৮ - ২০১৪ | ৯: ৪২ অপরাহ্ণ | সংবাদটি 762 বার পঠিত

aa1চার কেজি স্বর্ণ দিয়ে বানানো সার্ট গায়ে চাপিয়ে হাঁটছেন ভারতীয় ব্যবসায়ী পঙ্কজ পরখ। তাই তার আশে পাশে দেহরক্ষীরাও হাঁটছেন। পঙ্কজ লেখাপড়ায় স্কুলের গণ্ডি পার না হলে কি হবেন, মিলিয়ন মিলিয়ন ডলারের বস্ত্র ব্যবসা আছে তার।

মুম্বাইতে সিদ্ধিবিনায়কের মন্দিরে গণেজের পুজো দিয়ে এসে তিনি জানান, আমি কিছু বিশেষ ধরনের জামা পড়তে চাই। তাই এ স্বর্ণখচিত জামা পড়েছি। এজন্যে ১ লাখ ২৭ হাজার পাউন্ড দিয়ে স্বর্ণ কিনতে হয়েছে জামাটি তৈরির জন্যে।

মুম্বাই থেকে ২৬০ কিলোমিটার দূরে ইয়েলায় বাস করেন পঙ্কজ। গায়ে স্বর্ণের জামা চাপানোর পর স্থানীয় পত্রিকায় তা নিয়ে সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ হতে থাকে। পঙ্কজ পুলকিত হন যখন দেখেন তার গায়ে স্বর্ণের জামা দেখে কোনো নারী বিস্ময়ে হতবাক দৃষ্টিতে তার দিকে তাকিয়ে আছেন। আর পুরুষরাও কিছুটা হিংসার চোখেই দেখেন তাকে। তবে ২ থেকে ৩ কিলোর নিচে স্বর্ণের জামা না পড়ে তিনি রাস্তায় নামেন না।

ঐরসংবষভ ঞড় অ এড়ষফ ঝযরৎঃকি আর করা। পঙ্কজ যখন ৫ বছর বয়সে স্কুলে পড়াশোনা করছেন তখনি তার স্বর্ণপ্রীতি সৃষ্টি হয়। তখন থেকেই স্বর্ণের অলঙ্কার পড়তে থাকেন আর তা দিনে দিনে বাড়তেই থাকে। তো এভাবে স্বর্ণের প্রতি ঝোঁক বরং ৪৫ বছর ধরেই বলতে হবে।

সত্যি কথা বলতে কি বিয়ের দিন কণের চেয়ে বর পঙ্কজের গায়ে বেশি স্বর্ণালঙ্কার দেখে অনেক অতিথি বিরক্ত হয়েছিলেন। কিন্তু কি আর করা স্বর্ণের প্রতি তীব্র আকর্ষণ পঙ্কজকে তা করতে বাধ্য করে।

ছবিতে পঙ্কজের গায়ে যে স্বর্ণের সার্টটি দেখছেন, মুম্বাইয়ের পারেলের শান্তি জুয়েলার্সেও কুড়ি জন সোনারু তা বানিয়ে দিতে ৩২’শ ঘন্টা সময় নিয়েছেন। তার জামার সোনা ১৮ থেকে ২২ ক্যারেটের এবং তাতে কোনো খাদ নেই। কর অফিসের লোকজন আসলেও কোনো বিপত্তি নেই কারণ ব্যবসায় কোনো কর ফাঁকি দেন না পঙ্কজ।

এধরনের সোনার সার্টের নিচে পাতলা লাইনিং কাপড় ব্যবহার করতে হয় যাতে পঙ্কজ স্বাচ্ছন্দ বোধ করেন। এ ধরনের জামা পরিস্কার করতেও কোনো ঝামেলা নেই। বরং মেরামত যোগ্য এবং সারা জীবনের গ্যারান্টি থাকে টেকসইয়ের দিক থেকে। গার্মেন্টস ব্যবসা দিয়ে পঙ্কজ শুরু করেছিলেন। স্ত্রী প্রতিভাকে নিয়ে তার সুখের সংসার। সিদ্ধার্থ (২২) ও রাহুল (১৯) নামে তার দুটি ছেলে কলেজে পড়ে। কিন্তু তারা কখনো পঙ্কজের মত সোনা নিয়ে কোনো কৌতুহল দেখান না। পোলিও চিকিৎসার জন্যে পঙ্কজ অকাতরে দান করে থাকেন। গরীবের জন্যে চিকিৎসা, খাদ্য ও বস্ত্র কিনে দেওয়ার মত মন পঙ্কজের আছে। কিন্তু গায়ে সোনার জামার জন্যে পঙ্কজকে লোডেড রিভলবার ছাড়াও একাধিক দেহরক্ষী নিয়ে চলতে হয়।

আরো সংবাদ

বিশ্বনাথে সাংবাদিকদের সাথে প্রবাসী জয়নুল আবেদীনের মতবিনিময়

বিশ্বনাথে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালিকের ত্রাণ বিতরণ

বিশ্বনাথের দেওকলসে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

বিশ্বনাথে যুক্তরাজ্যের ওয়েস্টফেরি কমিউনিটি মসজিদের অর্থায়নে ত্রাণ বিতরণ

গ্রামীণফোনে ২০ টাকার নিচে রিচার্জ করা যাবে না

সৌদিতে আরও দুই বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু

বৃষ্টি কমে বাড়তে পারে তাপমাত্রা

ক্রোম ব্রাউজার গতি কমে গেলে করণীয়

রাতে ঘুম আসে না কারণ ও সমাধান

বিশ্বনাথে ‘বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের’ অর্থ বিতরণ

বিশ্বনাথে ৫৫ বছর পর অনুষ্ঠিত হলো রথযাত্রা মহোৎসব

বিশ্বনাথে প্রবাসীদের পক্ষ হতে বন্যার্তদের মাঝে নগদ অর্থ বিতরণ

সর্বশেষ সংবাদ

বিশ্বনাথে সাংবাদিকদের সাথে প্রবাসী জয়নুল আবেদীনের মতবিনিময়

বিশ্বনাথে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালিকের ত্রাণ বিতরণ

বিশ্বনাথের দেওকলসে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

বিশ্বনাথে যুক্তরাজ্যের ওয়েস্টফেরি কমিউনিটি মসজিদের অর্থায়নে ত্রাণ বিতরণ

গ্রামীণফোনে ২০ টাকার নিচে রিচার্জ করা যাবে না

সৌদিতে আরও দুই বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু

বৃষ্টি কমে বাড়তে পারে তাপমাত্রা

ক্রোম ব্রাউজার গতি কমে গেলে করণীয়

রাতে ঘুম আসে না কারণ ও সমাধান

বিশ্বনাথে ‘বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের’ অর্থ বিতরণ

বিশ্বনাথে ৫৫ বছর পর অনুষ্ঠিত হলো রথযাত্রা মহোৎসব

বিশ্বনাথে প্রবাসীদের পক্ষ হতে বন্যার্তদের মাঝে নগদ অর্থ বিতরণ