বিশ্বনাথের প্রথম অনলাইন পত্রিকা

বিভিন্ন পেশায় আলো ছড়াচ্ছেন বিশ্বনাথের যে সকল কন‌্যা-জায়া-জননীরা

মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম :: পূন্যভূমি সিলেটের এক আলোকিত জনপদ বিশ্বনাথ। মফস্বল বা উপজেলা সদরের এ জনপদটি অনেকটা রক্ষণশীল বলা যায়। তবে সাম্প্রতিক সময়ে রক্ষণশীলতার বাঁধ ডিঙ্গিয়ে আমাদের কন‌্যা, জায়া ও জননীরা আজ দেশে-বিদেশে বিভিন্ন পেশায় তাদের প্রতিভার আলো ছড়াচ্ছেন। যা থেকে আগামী প্রজন্মের তরুণী ও কিশোরীরা দারুণ অনুপ্রাণিত হয়ে উচ্চ শিক্ষার প্রতিযোগিতায় আজ মগ্ন। সময় স্বল্পতার কারণে নিম্নে বাচাইকৃত কয়েকটি পেশার প্রত্যেকটির একজনের করে সংক্ষিপ্ত পরিচিতি তুলে ধরা হয় পবিত্র ঈদ-উল ফিতর-২০১৯ উপলক্ষে বিশ্বনাথ নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম কর্তৃক প্রকাশিত বিশেষ ম‌্যাগাজিন ‘উৎসব’-এ। উক্ত প্রতিবেদনটি নিউজ পোর্টালের সম্মানিত পাঠকদের জন‌্য প্রকাশ করা হলো। ভবিষ্যতে অন্যান্য পেশায় কর্মরত আমাদের জায়া জননীদের পরিচিতি এই জাতিয় প্রকাশনায় তুলে ধরা হবে। এর জন্য যারা বাদ পড়লেন তাদের প্রতি বিনীত অনুরোধ আপনার তথ্য বিশ্বনাথ নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম বরাবরে প্রেরণের জন্য।

রুশনারা আলী : বিশ্বনাথ উপজেলার লামাকাজী ইউনিয়নের ভূরকি গ্রামের আফতাব আলী ও রানু বেগম দম্পতির মেয়ে রুশনারা আলী ব্রিটিশ পার্লমেন্ট নির্বাচনের ইতিহাসে প্রথম বাংলাদেশী এমপি। তিনি পর পর তিন বার এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া বিলাতের মাটিতে বিশ্বনাথের এই কৃতি সন্তান লেবার পার্টির ছায়া মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে এবং বর্তমানে বৃটেনের রাণীর বিশেষ দূত হয়ে যুক্তরাজ্যে বাঙালীদের মুখ উজ্জ্বল করেছেন।

রেজিয়া সুলতানা মালিক : বিশ্বনাথ উপজেলার সদর ইউনিয়নের সরুয়ালা গ্রামের কৃতিসন্তান, বাংলাদেশ সুপ্রীমকোর্টের সিনিয়র আইনজীবী ও বিশিষ্ট সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. শাহদীন মালিকের সহধর্মিনী রেজিয়া সুলাতানা মালিক ঢাকাস্থ ডেনমার্ক এ্যাম্বেসীতে উচ্চ পদস্থ পদে কর্মরত আছেন। এর পূর্বে তিনি লন্ডন এ্যাম্বেসীতেও দীর্ঘদিন কর্মরত ছিলেন। রেজিয়া সুলতানা মালিকের বাবার বাড়ি সিলেটের বরইকান্দি গ্রামে। তার বাবার নাম শামছুর রহমান।

রাজনীতিবিদ তাহসিনা রুশদী লুনা : বিশ্বনাথ উপজেলার অলংকারী ইউনিয়নের রামধানা গ্রামের পুত্রবধূ ও সাবেক সংসদ সদস্য এম ইলিয়াস আলীর সহধর্মিনী তাহসিনা রুশদীর লুনা সিলেটের সাম্প্রতিক কালের রাজনীতির অন্যতম এক আলোচিত চরিত্র। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালযের সাবেক ডেপুটি রেজিষ্ট্রার তাহসিনা রুশদী লুনা বর্তমানে বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্ঠা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

উপ-সচিব মোর্শেদা জামান চৌধুরী : বিশ্বনাথ উপজেলার দশঘর ইউনিয়নের রায়খেলী গ্রামের বিশিষ্ট আইনজীবী এডভোকেট মুরাদুজ্জামান চৌধুরীর জৈষ্ঠা কন্যা মুর্শেদা জামান চৌধুরী। বিশ্বনাথে ইতিহাসে তিনি প্রথম মহিলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হওয়ার রেকর্ড গড়েন। বর্তমানে তিনি অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক বিভাগে উপ-সচিব পদে হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

আমেরিকার পুলিশ অফিসার নাসরিন আক্তার : বিশ্বনাথ উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের পালেরচক গ্রামের মো. মুহিবুজ্জামানের সহধর্মিনী নাসরিন আক্তার যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক পুলিশে কাজ করছেন। তার বাবার বাড়ি সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার মুড়িয়া ইউনিয়নের ছোটদেশ (টিটির) গ্রামে। তার পিতার নাম মরহুম আব্দুল মালিক (প্রাক্তন সিভিল ইঞ্জিনিয়ার)। নাসরিন আক্তার সিলেট মেট্রোপলিটন ইউনির্ভাসিটি থেকে বিবিএ গ্রিী অর্জন করে ২০১২ সালে মো. মুহিবুজ্জামানকে বিয়ে করে যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান। সেখানে গিয়ে নিউইয়র্ক সিটির একটি ইউনির্ভাসিটিতে গ্র্যাজুয়েশন কমপ্লিট করার পর পুলিশে যোগদান করেন। বিশ্বনাথের এই পুত্রবধূ নাসরিন আক্তার বর্তমানে নিউইয়র্ক ম্যানহাটন পি এস-৫ এ পুলিশ অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন।

অধ্যাপক রোকেয়া বেগম : বিশ্বনাথ উপজেলার সদর ইউনিয়নের চাঁনসির কাপন গ্রামের মরহুম ইছকন্দর আলী ও মরহুমা ছালেহা বেগম দম্পত্তির কন্যা রোকেয়া বেগম। তিনি ১৯৯৬ সাল থেকে বিশ্বনাথ ডিগ্রী কলেজে সহকারী অধ্যাপক হিসেবে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে কর্মরত আছেন।

অধ্যক্ষ নেহারুন নেছা : বিশ্বনাথ উপজেলার সদর ইউনিয়নের জানাইয়া গ্রামের সিকন্দার আলীর মেয়ে ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বাবুল আখতারের সহধর্মিনী নেহারুন নেছা। মানুষ গড়ার কারিগর নেহারুন নেহারুন নেছা দীর্ঘদিন যাবৎ শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত আছেন। তিনি বিশ্বনাথ হাজী মফিজ আলী বালিকা স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ পদে কর্মরত আছেন।

অ্যাডভোকেট শাহ সাহেদা আখতার : বিশ্বনাথ উপজেলার সদর ইউনিয়নের ধর্মদা (পীর বাড়ি) গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সরকারী কর্মকর্তা শাহ মো. সোনাওর আলীর মেয়ে এডভোকেট শাহ সাহেদা আখতার। তিনি বাংলাদেশ পরিবেশ আইনজীবী সমিতি (বেলা)’র সিলেট বিভাগীয় সমন্বয়কারী হিসেবে কাজ করছেন।

চিকিৎসক তাহমিনা জাহান চৌধুরী : বিশ্বনাথ উপজেলার বাইশঘর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট মুজিবুর রহমান চৌধুরীর মেয়ে ডাঃ তাহমিনা জাহান চৌধুরী। বিশ্বনাথের কৃতিকন্যা তাহমিনা জাহান চৌধুরী ইতিমধ্যে সিলেটের চিকিৎসাঙ্গনে বেশ সুখ্যাতি অর্জন করেছেন। তিনি বর্তমানে জালালাবাদ রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শিশু রোগ বিভাগে সহকারী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত আছেন। তার স্বামী ডাঃ সৈয়দ মাহবুবুল হাসান সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত আছেন।

ব্যারিষ্টার সামিয়া ইফ্ফাত ফেরদৌস : বিশ্বনাথ উপজেলার অলংকারী ইউনিয়নের রামধানা (কৃপাখালী) গ্রামের অ্যাডভোকেট গিয়াস উদ্দিন আহমদ ও মিসেস রাজিয়া সুলতানা দম্পতির মেয়ে ব্যারিষ্টার সামিয়া ইফ্ফাত ফেরদৌস। ২০০০ সালে সিলেট সরকারি অগ্রগামী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস.এস.সি, ২০০২ সালে সিলেট মহিলা কলেজ কলেজ থেকে এইচ.এস.সি প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হন। এরপর ২০০৩ সালে ঢাকা ভূইয়া একাডেমী থেকে লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ডিপ্লোমা ইন-ল পাশ করেন এবং ২০০৫ সালে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে এল.এল.বি (অনার্স) ডিগ্রী অর্জন করেন। পরবর্তীতে ২০০৮ সালে ইংল্যান্ডে বিশ্বখ্যাত লিংকন ইন হতে ব্যারিস্টার এট-ল ডিগ্রী লাভ করেন। বর্তমানে তিনি ইংল্যান্ডে একটি ল ফার্মে কর্মরত আছেন।

ব্যাংকার তপতী রাণী ধর : বিশ্বনাথ উপজেলা সদরের পুরান বাজারের তপতী রাণী ধর। তার পিতার নাম সুকময় ধর ও মাতার নাম বিভা রানী ধর। বিশ্বনাথের কৃতিকন্যা তপতী রাণী ধর পেশায় একজন ব্যাংকার। তিনি প্রাইম ব্যাংক’র হেড অফিস ঢাকার গুলশান শাখায় সিনিয়র এক্সিকিউটিভ অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন। তার স্বামী ডাঃ বিনয় গুহ ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কনসালটেন্ট হিসেবে কর্মরত আছেন।

পুলিশ অফিসার রাশেদা বেগম : বিশ্বনাথ উপজেলার সদর ইউনিয়নের জানাইয়া গ্রামের আব্দুল মান্নানের স্ত্রী রাশেদা বেগম বালাদেশে পুলিশে কর্মরত আছেন। তারা স্বামী-স্ত্রী দু’জনেই পুলিশ বিভাগে উচ্চ পদস্থ বিভিন্ন পদে কর্মরত ছিলেন এবং এখনো রয়েছেন।

সাংবাদিক মনিকা ইসলাম : বিশ্বনাথ উপজেলার দশঘর ইউনিয়নের নোয়াগাঁও গ্রামের শিশির বিন্দু দাস ও বিভা বিন্দু দাস’র মেয়ে মনিকা ইসলাম দীর্ঘদিন যাবৎ সাংবাদিকতা পেশায় নিয়োজিত রয়েছেন। তিনি ২০০০ সালে দৈনিক মানচিত্র, ২০০১ সালে দৈনিক শ্যামল সিলেট ও ২০১৮ সালে দৈনিক সিলেট মিরর পত্রিকায় স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে কাজ করেন। বর্তমানে তিনি তরঙ্গ টিভি’কে সাব এডিটর হিসেবে কর্মরত আছেন। তিনি সনাতন ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করে মনিকা দাস থেকে মনিকা ইসলাম নামকরণ করেন এবং মৌলভীবাজার জেলার কুলাউরা থানার গৌড়করণ ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের ফখরুল ইসলামকে বিয়ে করেন। তার স্বামী ফখরুল ইসলামও সাংবাদিকতা পেশায় নিয়োজিত রয়েছেন। ফখরুল ইসলাম দীর্ঘদিন দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার সিলেট ব্যুারো প্রধান হিসেবে কাজ করেছেন এবং বর্তমানে দৈনিক দেশরূপান্তর পত্রিকায় সিলেট ব্যুারো প্রধান হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

নারী উদ্যোক্তা রুবা খানম : বিশ্বনাথ উপজেলার অলংকারী ইউনিয়নের রামধানা গ্রামের জয়নাল আবেদীন ও আফিয়া খানম’র দম্পত্তির কন্যা রুবা খানম। নারী উদ্যোক্তা হিসেবে মৎস্য চাষে অবদান রাখায় ২০১৭ সালে বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পুরস্কার-১৪২২ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র হাত থেকে গ্রহন করেন রুবা খানম। বিশ্বনাথে ‘আফিয়া খানম ফিশারিজ’র নামে তার একটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে। বাংলাদেশের বৃহত্তম বাণিজ্য সংগঠন এফবিসিআই’র এক বাণিজ্যিক সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র সফরসঙ্গী হয়ে তিনি ভারত সফর করেছেন। রুবা খানম সিলেট উইমেন্স চেম্বার অফ কর্মাস এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ’র ডাইরেক্টর এবং এফবিসিসিআই’র জিবি মেম্বার।

AFTER NEWS
You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.