সিলেটে আরিফুল হক চৌধুরীর 'বিজয় নিশ্চিত'
মঙ্গলবার, ১৪ আগষ্ট, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ সংবাদ
শোকাবহ ১৫ আগস্ট আজ  » «   বিশ্বনাথে রাস্তায় গেইট নির্মাণ নিয়ে দু’পক্ষের বিরোধ  » «   বিশ্বনাথ ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণে প্রশাসনিক অনুমোদন  » «   শিক্ষা প্রতিষ্টানে মাদক বিরোধী কমিটির আলোচনা সভা  » «   বিশ্বনাথে উপজেলা আইন-শৃংখলা কমিটির সভা  » «   বিশ্বনাথে ব্রাক এর ‘উপজেলা মাইগ্রেশন ফোরাম মিটিং’ অনুষ্ঠিত  » «   দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে আ’লীগের বিকল্প নেই -শফিক চৌধুরী  » «   পবিত্র হজ্ব পালন করতে স্বপরিবারে সৌদি আরব গেলেন মিছবাহ উদ্দিন  » «   বিশ্বনাথে উদ্ধারকৃত ২২টি গরু সনাক্ত করতে থানায় জনতার ভিড়  » «   সিংগেরকাছ পাবলিক বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজে নবীণ বরণ  » «   বিশ্বনাথে জাতীয় শোক দিবস পালনের লক্ষে যুবলীগের প্রস্তুতি সভা  » «   বিশ্বনাথে স্বামীর হাতুড়ির আঘাতে স্ত্রী নিহতের ঘটনায় মামলা দায়ের  » «   বিশ্বনাথে ‘পরিচ্ছন্ন ও সবুজ জনপদ’ কার্যক্রমের উদ্বোধন করলেন জেলা প্রশাসক  » «   বিশ্বনাথে ১১টি চোরাই গরু উদ্ধার : আটক ২  » «   জগন্নাথপুরের তিনটি এলাকায় পল্লী বিদ্যুতের উদ্বোধন  » «  

সিলেটে আরিফুল হক চৌধুরীর ‘বিজয় নিশ্চিত’

বিশ্বনাথনিউজ২৪ :: সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে বিজয়ের দ্বারপ্রান্ডে আরিফুল হক চৌধুরী। তিনি ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৯০ হাজার ৪৯৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি আওয়ামী লীগের বদর উদ্দিন আহমদ কামরান পেয়েছেন ৮৫ হাজার ৮৭০ ভোট। আরিফুল হক চৌধুরী ১৩২ কেন্দ্রে বদর উদ্দিন কামরানের চেয়ে ৪ হাজার ৬২৬ ভোট বেশি পেয়েছেন।  তবে আরিফের ভাগ্য নিধারণ হবে স্থগিত দুটি কেন্দ্রের ভোটে।

স্থগিতকৃত ওই দুই কেন্দ্রে নির্বাচন হলে কামরান যদি সকল ভোট পান, তবে তিনি আরিফের চেয়ে ১৬১ ভোট বেশি পেয়ে বিজয়ী হবেন। আর যদি আরিফ স্থগিতকৃত ওই দুই কেন্দ্র থেকে আরও ১৬২ ভোট পেয়ে যান, তবে তিনিই বিজয়ী হবে।

এক্ষেত্রে যদি স্থগিতকৃত ওই দুই কেন্দ্রে আবার ভোট গ্রহণ করা হয়, তবে কামরানের পক্ষে পুরো দুই কেন্দ্রের ৪ হাজার ৭৮৭ ভোট তথা শতভাগ ভোট পাওয়া খুবই কঠিন হবে। এ দুই কেন্দ্রের সকল ভোটার ভোট দিতে আসবেন কিনা, সেটিও একটি প্রশ্ন। বিপরীতে আরিফের পক্ষে ওই দুই কেন্দ্র থেকে মাত্র ১৬২টি ভোট পাওয়া খুবই সহজ। তাই আগেভাগেই বলে দেয়া যায়, সিসিকের চতুর্থ নির্বাচনে মেয়র পদে আরিফের জয় নিশ্চিত।

তবে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে ঢাকায় নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হচ্ছেন সিলেটের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা।

নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আলীমুজ্জামান জানান, সিসিক নির্বাচনে মেয়র পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী জামায়াত নেতা এহসানুল মাহবুব জুবায়ের ১০ হাজার ৯৫৪ ভোট, ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী মোয়াজ্জেম হোসেন খান ২ হাজার ১৯৫ ভোট, সিপিবি-বাসদের প্রার্থী আবু জাফর ৯০০ ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থী এহসানুল হক তাহের ২৯২ ভোট পেয়েছেন। এছাড়া নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানো বিএনপি নেতা বদরুজ্জামান সেলিম ৫৮২ ভোট পেয়েছেন।

এর আগে সোমবার সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। লাগাতার ৮ ঘণ্টা ভোটগ্রহণকালীন কয়েকটি কেন্দ্রে বেশ কিছু অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় ভোট ডাকাতির অভিযোগ এনে বিকেল ৪টার দিকে এক সংবাদ সম্মেলন করে সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন প্রত্যাখান করেছেন বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী। এসময় তিনি বলেন, ‘সিলেটে ভোট হয় নাই, ডাকাতি হয়েছে। এই নির্বাচন প্রত্যাখান করলাম।’ বিভিন্ন ভোট কেন্দ্র দখলের অভিযোগ এনে তিনি বলেন, নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হতাম। এই সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধীনে নির্বাচনে যাওয়া উচিত হবে কিনা ২০ দলীয় জোটের চিন্তা করা দরকার।

উল্লেখ‌্য, সিলেট সিটি কর্পোরেশেনর চতুর্থ নির্বাচন এটি। এ নির্বাচনে মেয়র পদে ছয়জন, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৬২ জন ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৩৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। ১৩৪টি কেন্দ্রে ভোটার রয়েছে ৩ লাখ ২১ হাজার ৭৩২ ভোটার।

am-accountancy-services-bbb-1

সর্বশেষ সংবাদ