বিশ্বনাথে তালাবদ্ধ সেই মার্কেট আদালতের নির্দেশে খুলে দিল পুলিশ
বুধবার, ১৫ আগষ্ট, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩১ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ সংবাদ
বিশ্বনাথে রামপাশা-বৈরাগী-সিংগেরকাছ বাজার সড়কের বেহাল দশা : জনদূর্ভোগ  » «   বিশ্বনাথে জাতীয় শোক দিবসে পুষ্পস্তবক অর্পন ও র‌্যালী  » «   শোকাবহ ১৫ আগস্ট আজ  » «   বিশ্বনাথে রাস্তায় গেইট নির্মাণ নিয়ে দু’পক্ষের বিরোধ  » «   বিশ্বনাথ ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণে প্রশাসনিক অনুমোদন  » «   শিক্ষা প্রতিষ্টানে মাদক বিরোধী কমিটির আলোচনা সভা  » «   বিশ্বনাথে উপজেলা আইন-শৃংখলা কমিটির সভা  » «   বিশ্বনাথে ব্রাক এর ‘উপজেলা মাইগ্রেশন ফোরাম মিটিং’ অনুষ্ঠিত  » «   দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে আ’লীগের বিকল্প নেই -শফিক চৌধুরী  » «   পবিত্র হজ্ব পালন করতে স্বপরিবারে সৌদি আরব গেলেন মিছবাহ উদ্দিন  » «   বিশ্বনাথে উদ্ধারকৃত ২২টি গরু সনাক্ত করতে থানায় জনতার ভিড়  » «   সিংগেরকাছ পাবলিক বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজে নবীণ বরণ  » «   বিশ্বনাথে জাতীয় শোক দিবস পালনের লক্ষে যুবলীগের প্রস্তুতি সভা  » «   বিশ্বনাথে স্বামীর হাতুড়ির আঘাতে স্ত্রী নিহতের ঘটনায় মামলা দায়ের  » «   বিশ্বনাথে ‘পরিচ্ছন্ন ও সবুজ জনপদ’ কার্যক্রমের উদ্বোধন করলেন জেলা প্রশাসক  » «  

বিশ্বনাথে তালাবদ্ধ সেই মার্কেট আদালতের নির্দেশে খুলে দিল পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেটের বিশ্বনাথে পৈত্রিক সম্পত্ত্বি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রবাসী কর্তৃক মার্কেটে তালা দেওয়ার ২৫ দিন পর অবশেষে আদালতের নির্দেশে উপজেলার বাগিছা বাজারস্থ ‘হাজী আবদুল করিম সুপার মার্কেটের’ তালা খুলে দিয়েছে থানা পুলিশ। সিলেট সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ১ম আদালতের নির্দেশে মঙ্গলবার (১৭জুলাই) বিকেলে বিশ্বনাথ থানার এসআই শফিকুল ইসলামের নেতত্বে একদল পুলিশের উপস্থিতিতে মার্কেটে লাগানো তালা খুলে দেন প্রবাসী সাইফুল ইসলাম সায়েক গংরা। এতো কিছুর পরও আদালতের নির্দেশে দীর্ঘদিন পর মার্কেটের তালা খুলে দেওয়ায় ও নিজেদের ব্যবসা শুরু করতে পারায় আনন্দ প্রকাশ করেছেন ব্যবসায়ী।
উল্লেখ্য, উপজেলার দেওকলস ইউনিয়নের সর্দারপাড়া গ্রামের মরহুম হাজী আবদুল করিমের পুত্র যুক্তরাজ্য প্রবাসী সায়েস্থা আহমদ ওরফে সায়েস্তা মিয়ার কাছ থেকে চুক্তিপত্রের মাধ্যমে দোকান কোঠা ভাড়া নিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিলেন ৬ ব্যবসায়ী। জায়গা-জমি নিয়ে পারিবারিক বিরোধের জের ধরে গত ২৩ জুন মার্কেটে তালা লাগিয়ে দেন সায়েস্তা মিয়ার অপর ভাইয়েরা (প্রবাসী চান মিয়া ও সাইফুল ইসলাম সায়েক গংরা)। মার্কেটে তালা দেওয়ার পর ব্যবসায়ীরা আদালতে মামলা দায়ের করেন। অবশেষে সার্বিক দিক পর্যালোচনায় ন্যায় বিচারের স্বার্থে বন্ধ দোকান খুলে দেওয়ার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ’কে নির্দেশ প্রদান করেন আদালত।

am-accountancy-services-bbb-1

সর্বশেষ সংবাদ