মঙ্গলবার, ১৭ জুলাই, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ সংবাদ
বিশ্বনাথে গরু চুরি : থানায় জিডি  » «   বিশ্বনাথ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বখাটে কর্তৃক ইভটিজিংয়ের শিকার কলেজ ছাত্রী  » «   বিশ্বনাথের খাজাঞ্চীতে ত্রাণ বিতরণ করলেন ইলিয়াসপত্নী লুনা  » «   বিশ্বকাপ জয়ে উৎসবে ভাসছে ফ্রান্স  » «   দ্বিতীয় বারের মতো বিশ্বকাপ ফুটবলের শিরোপা জিতলো ফ্রান্স  » «   লালাবাজারে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২ : আহত ৪০  » «   জগন্নাথপুরে ইউএনও ও এসিল্যান্ডের পদ শুন্য : প্রশাসনিক কাজে স্থবিরতা  » «   বিশ্বনাথে সাড়ে ২৬ হাজার শিশু খেল ভিটামিন এ-প্লাস ক্যাপসুল  » «   ব্রিটেনে বিশ্বনাথের ছেলে মাসায়েল’র ডিগ্রী অর্জন  » «   বিশ্বনাথে হামলার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় ৪ জনের কারাদন্ড  » «   সিসিক নির্বাচনে হিসাবনিকাশ পাল্টে দিতে পারেন নতুন ভোটাররা  » «   বিশ্বনাথ এইড ইউকে’র ১০ বছর পূর্তি ও নতুন কমিটির অভিষেক ৭ অগাস্ট  » «   ডাক্তার যখন কসাই  » «   উত্তর বিশ্বনাথ উচ্চ বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হলেন জসিম উদ্দিন খান  » «   বালাগঞ্জের মোরারবাজারে মাদক, জঙ্গী ও সন্ত্রাস বিরোধী মতবিনিময় সভা  » «  

বেলজিয়ামকে ১-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে ফ্রান্স

স্পোর্টস ডেস্ক :: বিশ্বকাপ ইতিহাসে দ্বিতীয়বারের মতো সেমিফাইনাল খেলতে নেমেছিল বেলজিয়াম। বুকভরা আশা ছিল, ফ্রান্সকে হারিয়ে ফাইনালে যাবে তারা। সেই লক্ষ্যে গোটা ম্যাচে মরিয়া হয়ে খেলে গেল রেড ডেভিলরা। তবে শেষ পর্যন্ত তাদের প্রচেষ্টা আলোর মুখ দেখল না। হারের যন্ত্রণা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হলো রবার্তো মার্টিনেজের শিষ্যদের। তাদের ১-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে উঠে গেল ফরাসিরা।

এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো ফাইনালে উঠল ফ্রান্স। প্রথমবার ১৯৯৮ সালে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ফ্রেঞ্চরা। দ্বিতীয়বার ২০০৬ সালে রানার্স-আপ হয়েছিল তারা। ফের ফাইনালি লড়াইয়ে নাম লেখালো সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

ফাইনালে উঠার লড়াইয়ে সেন্ট পিটার্সবার্গে মুখোমুখি হয় ফ্রান্স-বেলজিয়াম। দুদলই আক্রমণাত্মক শুরু করে। প্রথম সুযোগ পায় বেলজিয়াম। তবে ১৫ মিনিটে হাতের নাগালে পাওয়া সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি এডেন হ্যাজার্ড। পাল্টা আক্রমণে ২৩ মিনিটে সুযোগ পায় ফ্রান্স। কিন্তু তারাও স্বার্থ হাসিল করতে পারেনি। হাতে পাওয়া সুযোগ নষ্ট করেন অলিভিয়ের জিরু।

এরপর অ্যাটাক-কাউন্টার অ্যাটাকে এগিয়ে চলে খেলা। উভয় দলই একাধিক সুযোগ পায়। তবে ফুটবল দেবী কাউকেই খুশি করেননি। ৩৭ মিনিটে নিশ্চিত গোল বাঁচিয়ে দেন বেলজিয়ান গোলরক্ষক কর্তোয়া। এর মিনিট দুয়েক পর ফ্রান্সকে রক্ষা করেন গোলপ্রহরী লরিস। শেষ পর্যন্ত গোলের খাতা ফাঁকা নিয়ে বিরতিতে যেতে হয় দুদলকে।

প্রথমার্ধে বঞ্চিত হলেও বিরতির পরই গোল পেয়ে যায় ফ্রান্স। ৫১ মিনিটে আঁতোয়া গ্রিজম্যানের বিষাক্ত কর্নার থেকে দুরন্ত হেডে নিশানাভেদ করেন স্যামুয়েল উমতিতি। এতে ১-০ গোলে এগিয়ে যায় ’৯৮ চ্যাম্পিয়নরা।

এগিয়ে গিয়ে দারুণ আত্মবিশ্বাসী দেখায় ফ্রান্সকে।গোলকিপার, রক্ষণ, মাঝমাঠ ও আক্রমণভাগের মাঝে দারুণ সমন্বয় গড়ে উঠে।

am-accountancy-services-bbb-1

সর্বশেষ সংবাদ