শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল, ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ সংবাদ
বিশ্বনাথে সাংবাদিকদের সাথে অশোভন আচরণের জন্য ইউএনও’র দুঃখ প্রকাশ  » «   বিশ্বনাথে প্রবাসীর কোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় সাবেক চেয়ারম‌্যান আবারক গ্রেপ্তার  » «   বিশ্বনাথে নরশিংপুর সাজ্জাদুর রহমান সরকারি প্রাথমিক বিদ‌্যালয়ে সাধারণ সভা  » «   বালাগঞ্জে শিলাবৃষ্টিতে বোরো ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি  » «   বিশ্বনাথে সানশাইন মডেল একাডেমিতে পিঠা উৎসব ও প্রবাসীদের সংবর্ধনা  » «   বিশ্বনাথে নিরব ভাই ভাই স্পোটিং ক্লাবের ফুটবল টুর্নামেন্ট সম্পন্ন  » «   বিশ্বনাথ আ’লীগের সাংগঠনিক সুমনের পিতার দাফন সম্পন্ন  » «   সেবার অঙ্গীকার নিয়ে ৫ম বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের যাত্রা শুরু  » «   বিশ্বনাথ উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুমনের পিতার ইন্তেকাল  » «   বিশ্বনাথে গুণীজন সংবর্ধনা ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ  » «   লন্ডনী কন্যা সেজে শিউলির প্রতারণা  » «   মুজিবনগর দিবসে বিশ্বনাথে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভা  » «   অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে বিশ্বনাথের সাংবাদিকরা ঐক্যবদ্ধ  » «   বিশ্বনাথ প্রেসক্লাব থেকে অসিত রঞ্জন দেব বহিস্কার  » «   বিশ্বনাথে কালবৈশাখী ঝড়ে লন্ডভন্ড বাড়িঘর : ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি  » «  

হয়রানি থেকে রেহাই পেতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রবাসী আব্দুন নুর’র আবেদন

বিশ্বনাথনিউজ২৪ :: হয়রানি ও চাঁদাবাজী থেকে রেহাই পেতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবর লিখিত আবেদন জানিয়েছেন সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার অলংকারী ইউনিয়নের মিরগাঁও গ্রামের মৃত ইন্তাজ আলীর পুত্র যুক্তরাজ্য প্রবাসী আইনজীবী আব্দুন নুর।
প্রধানমন্ত্রীর নিকট প্রেরিত অভিযোগে আব্দুন নুর উল্লেখ করেন, তিনি বিগত ৪০ বছর যাবৎ যুক্তরাজ্যের লোটন শহরে স্বপরিবারে বসবাস করে আসছেন। সেখানে তিনি আইন পেশার সাথে জড়িত ও জুরি বোর্ডের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। জন্মভূমির টানে নিজের মানসিক প্রশান্তি ও আত্মীয়-স্বজনের সাথে সাক্ষাত সহ বিভিন্ন কাজে দীর্ঘ ২০ বছর পর তিনি দেশে (বাংলাদেশ) আসেন এবং সুবিধাজনক সময় পর্যন্ত অবস্থান করেন। কিন্ত গ্রামের চাঁদাবাজদের কারণে জন্মভূমিতে ফিরেও নিজ বাড়িতে না থেকে তিনি সিলেট শহরে থাকতে বাধ্য হচ্ছেন।
তিনি চাঁদা না দেওয়ায় অলংকারী ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম রুহেল, মিরগাঁও গ্রামের মুহিবুর রহমান আক্তার, শায়েস্তা মিয়া (সাবেক ইউপি সদস্য), ফারুক, মুতলিব, আকজ্জুল ও লিলু মিয়া তাকে হুমকি দেন এবং তিনি আইনের আশ্রয় নিলেও এব্যাপারে তেমন কার্যত প্রদক্ষেপ গ্রহন করছে না প্রশাসন। সর্বশেষ ২০১৭ সালের জানুয়ারী মাসে তিনি দেশে এসে তার বোন ও অন্যান্য আত্মীয়-স্বজনদের সাথে দেখা করতে গ্রামের বাড়িতে গেলে উল্লেখিত লোকজন তার কাছে ১০লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা দিতে তিনি অস্বীকৃতি জানালে তারা (অভিযুক্তরা) গ্রামবাসীর কাছে আব্দুন নুরের বিরুদ্ধে ‘মসজিদে তালা ও হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) কে নিয়ে কটুক্তি’ করেছেন বলে অপপ্রচার করে বিভ্রান্ত শুরু করে। এর প্রতিবাদে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন আব্দুল নূর। বিষয়টি মিমাংসার জন্য তাকে (আব্দুন নূর) ১০ লাখ টাকা প্রদানের জন্য প্রস্তাব করেন ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম রুহেল। কিন্তু আব্দুল নূর টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে এরপর থেকে নাজমুল ইসলাম রুহেল বিভিন্ন সভা সমাবেশে শায়েস্তা-ফারুক গংদেরকে ভাল মানুষের স্বীকৃতি দিয়ে তার (আব্দুন নুর) বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার করে আসছেন এবং চাঁদাবাজদেরকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। এছাড়া আব্দুন নুরের বিরুদ্ধে যে সময়ে মসজিদে তালা লাগানোর অভিযোগ করা হয়েছে ওই সময়ে তিনি (আব্দুন নুর) সিলেটের বাহিরে অবস্থান করছিলেন এর প্রমাণ রয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।
লিখিত অভিযোগে আব্দুন নুর আরো উল্লেখ করেন, সম্প্রতি তিনি দক্ষিণসুরমা উপজেলার কামাল বাজারের তালিবপুর এলাকায় নিজের ক্রয় করা জমিতে একটি ৫তলা ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু করলে শায়েস্তা-ফারুক গংরা তার (আব্দুন নুর) কাছে ১কোটি টাকা চাঁদা দাবি করেন। তিনি (আব্দুন নুর) চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। এবস্থায় গত ১৩ এপ্রিল দিবাগত রাতে ওই নির্মানাধিন ভবন থেকে ৩শ্রমিক নিখোঁজ হন। পরদিন শায়েস্তা মিয়া সহ ৯জনকে আসামী করে অপহরণ ও চাঁদাবাজির অভিযোগে দক্ষিণ সুরমা থানায় মামলা দায়ের করেন আব্দুন নুর। ওই দিন রাতে দিক্ষণ সুরমা কলেজ এলাকা থেকে নিখোঁজ ৩জনকে উদ্ধার ও অভিযুক্ত ২জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
নিজেকে একজন নিয়মিত নামাজ আদায়কারী ঈমানদার মুসলমান দাবি করে আব্দুন নুর বলেন, ‘আমি গার্ডেন টাওয়ারে থাকি, অথচ তারা (শায়েস্তা-ফারুক) ছড়াচ্ছে আমি আমার গ্রামের মসজিদে তালা মেরে দিয়েছে এবং নবী করিম (সাঃ) কে নিয়ে নাকি কটুক্তি করেছি বলে সর্বত্র ছড়িয়ে দিচ্ছে। এছাড়া তারা আমাকে নাস্তিক হিসেবে অপবাদ দিয়ে আমার বিরুদ্ধে ভাড়াটে লোক নিয়ে মানববন্ধন করেছে।এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে আমি আমার নিজস্ব জায়গায় গ্রামের মসজিদ ও এলাকার হতদরিদ্র লোকদের পাকা গৃহ নির্মাণ করে দিয়েছি এবং গরীব অসহায় পরিবারের মেয়ের বিয়েতে ও চিকিৎসার জন্য অর্থ অনুদান প্রদান করেছি। প্রবাসে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে উপার্জিত অর্থে দেশে আমি যে জায়গা জমি ক্রয় করেছিলাম ও উত্তরাধিকার সূত্রে পেয়েছিলাম তা আজ এই চাঁদাবাজদের কারণে ভোগ করতে পারছি না। দেশ ও দেশের মানুষের জন্য কাজ করতে গিয়ে আজ নিজের জন্মভূমিতে এসে এই দুস্কৃতিকারীদের খপ্পরে পড়ে পদে পদে আমি হয়রানী হচ্ছি। এই চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে কার্যকর প্রদক্ষেপ গ্রহনের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও প্রশাসনের প্রতি আমার আকুল আবেদন জানাচ্ছি।
এদিকে, আব্দুন নুরের বিরুদ্ধে মসজিদে তালা দেওয়া ও হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) কে নিয়ে কটুক্তির ভিত্তিহীণ অভিযোগ করে তাকে নাস্তিক আখ্যায়িত করার ৫৭ ধারায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য গত ২৬জুন সিলেট পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ প্রদান করেছেন আব্দুন নুর। এতে অভিযুক্ত করা হয়েছে ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম রুহেল, স্থানীয় ইউপি সদস্য রিয়াজ আলী ও সাবেক ইউপি সদস্য সায়েস্তা মিয়া’সহ ১৪ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

am-accountancy-services-bbb-1

সর্বশেষ সংবাদ