গাড়ির মেয়াদোত্তীর্ণ গ্যাস সিলিন্ডার টাইম বোমা থেকে ভয়ংকর
বৃহস্পতিবার, ১৬ আগষ্ট, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ সংবাদ
যথাযোগ্য মর্যাদায় বিশ্বনাথে জাতীয় শোক দিবস পালিত  » «   যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালিত  » «   লালাবাজারে সড়ক দুর্ঘটনায় বিশ্বনাথের পিকআপ চালক ও হেলপার নিহত  » «   ঘাতক নূরের রায় কার্যকর না হওয়ায় আমরা সিলেটবাসী লজ্জিত -শফিক চৌধুরী  » «   বিশ্বনাথে রামপাশা-বৈরাগী-সিংগেরকাছ বাজার সড়কের বেহাল দশা : জনদূর্ভোগ  » «   বিশ্বনাথে জাতীয় শোক দিবসে পুষ্পস্তবক অর্পন ও র‌্যালী  » «   শোকাবহ ১৫ আগস্ট আজ  » «   বিশ্বনাথে রাস্তায় গেইট নির্মাণ নিয়ে দু’পক্ষের বিরোধ  » «   বিশ্বনাথ ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণে প্রশাসনিক অনুমোদন  » «   শিক্ষা প্রতিষ্টানে মাদক বিরোধী কমিটির আলোচনা সভা  » «   বিশ্বনাথে উপজেলা আইন-শৃংখলা কমিটির সভা  » «   বিশ্বনাথে ব্রাক এর ‘উপজেলা মাইগ্রেশন ফোরাম মিটিং’ অনুষ্ঠিত  » «   দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে আ’লীগের বিকল্প নেই -শফিক চৌধুরী  » «   পবিত্র হজ্ব পালন করতে স্বপরিবারে সৌদি আরব গেলেন মিছবাহ উদ্দিন  » «   বিশ্বনাথে উদ্ধারকৃত ২২টি গরু সনাক্ত করতে থানায় জনতার ভিড়  » «  

গাড়ির মেয়াদোত্তীর্ণ গ্যাস সিলিন্ডার টাইম বোমা থেকে ভয়ংকর

মোঃ ফজল খান ::

গাড়ির মেয়াদোত্তীর্ণ গ্যাস সিলিন্ডার টাইম বোমা থেকে ভয়ংকর হয়। হ্যা! আপনার অজান্তে প্রতিদিন পরিবহণ নিয়ে শহর, বন্দর, আত্মীয়-স্বজনদের বাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছেন। আপনার মনে কোন ভয় নেই। শুধু ভয় একটাই পাচ্ছেন সড়ক দুর্ঘটনা, তাই তো? কিন্তু আপনি যে পরিবহণ নিয়ে ঘোরাফেরা করছেন, সেটাতে গ্যাস (CNG) রাখার জন্য একটি সিলিন্ডার রয়েছে। তা কি আপনি জানেন? ঐ সিলিন্ডারের মেয়াদ মাত্র ৫ বৎসর, সেটা কী জানেন? ৫ বৎসর পর এটি বিষাক্ত বোমায় পরিনত হয়। যা টাইম বোমা থেকে ভয়ংকর হয়। যখন তখন বিস্ফোরণ হতে পারে। মেয়াদ উত্তীর্ণ ঐ সিলিন্ডার কেউ পরীক্ষা করে পরিবহণ নিয়ে চলাফেরা করেন না জানি। নাভানা কোম্পানি, নোভা কোম্পানি, টাটা কোম্পানি এই সিলিন্ডার গুলো তৈরি করেছে। তাদের সর্ত মতে- ৫ বৎসরের গ্যারান্টি দিয়ে একটি গ্যারান্টি কার্ড দিয়ে থাকেন গাড়ির মালিক পক্ষকে। ৫ বৎসর পর তাদের কোন দায়বার নেই। অথচ ৮৫% প্রতিটা গাড়িতে ৫ বৎসর মেয়াদ উত্তীর্ণ সিলিন্ডার নিয়ে প্রতিদিন মানুষ নিয়ে যাতায়াত করে। কখন জানি বিস্ফোরণ হবে। তবে এটা দেখার দায়িত্ব ট্রাফিক পুলিশের। গাড়ির অন্যান্য কাগজের সাথে গাড়িতে থাকা সিলিন্ডারের মেয়াদ আছে কী না সেটাও দেখা জরুরী। কারণ- কোন যাত্রী গ্যাস সিলিন্ডার বিষয়ে অবগত নয়। কিন্তু ট্রাফিক পুলিশ সিলিন্ডারের বিষয়ে কোন কাগজ বা গ্যারান্টি কার্ড দেখেন না। প্রশাসন এদিকে নজর দেওয়া খুবই জরুরী হয়ে পরেছে। আমরা বিভিন্ন সময় পত্র পত্রিকায় দেখি- সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হয়ে গাড়িতে থাকা অনেক যাত্রী আহত- নিহত হয়েছেন। পুলিশ প্রশাসন গুরুত্বের সাথে বিষয়টি দেখার জন্য অনুরোধ করছি। এবং যাত্রীরা সিলিন্ডার বিষয়ে ড্রাইভারের সাথে কথা বলে গাড়িতে যাতায়াত করুন। এবং গাড়িতে গ্যাস (CNG) নেওয়ার সময় সব যাত্রীরা গাড়ি থেকে নেমে যাবেন। নির্দিষ্ট স্থানে অনন্ত ১০০ হাত দূরে থাকবেন। কারণ গ্যাস লোড নেওয়ার সময় সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হবার সম্ভাবনা বেশি। আমি দেখেছি- গাড়িতে গ্যাস নেওয়ার সময় আলসে করে অনেক যাত্রী গাড়ি থেকে নামেন না। ড্রাইভারও গাড়ি থেকে নামার জন্য কিছু বলেন না। অনেক ড্রাইভার বলেন- নামার প্রয়োজন নেই, কোন সমস্যা হবে না। তারাতারি চলে যাওয়ার জন্য একথা ড্রাইভার বলে। এটা মোটেই ঠিক নয়। গাড়ির মালিক পক্ষ অনন্ত গ্যাস সিলিন্ডারের মেয়াদ উত্তীর্ণ হলে তারাতারি সিলিন্ডার পরিবর্তন করে নিবেন। মানুষ চলে গেলে ফিরিয়ে আনতে পারবেন না। অনন্ত এই কথা মনে রাখবেন এবং আমরা সাধারণ যাত্রীরা সচেতন হলে, সবাই সচেতন হবেন। মনে রাখবেন- সময়ের চেয়ে জীবনের মূল অনেক বেশি।

লেখক- আহবায়ক, বাঁচাও বাসিয়া নদী ঐক্য পরিষদ।

am-accountancy-services-bbb-1

সর্বশেষ সংবাদ