মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ সংবাদ
পূজামন্ডপ পরিদর্শনে বিশ্বনাথ অনলাইন প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ  » «   বিশ্বনাথে সরকারি রাস্তার গাছ কর্তন  » «   বিশ্বনাথে জাতীয় পার্টি ও পরিবহণ শ্রমিকদের মধ্যে সৃষ্ট বিরোধ নিস্পত্তি  » «   বিশ্বনাথে ‘ভূয়া নাগরিক সনদে’ নিয়োগকৃত শিক্ষকদের বাতিলের দাবীতে মন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান  » «   বিশ্বনাথে বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শনে ইউএনও  » «   বিশ্বনাথে শিশু কন‌্যাকে অপহরণকালে জনতার হাতে আটক ১  » «   বিশ্বনাথে অজ্ঞাতনামা নারী হত্যা মামলা পুনঃতদন্তের জন্য ওসি’কে আদালতের নির্দেশ  » «   বিশ্বনাথে রামপাশা ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন সম্পন্ন  » «   স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে ভর্তির জন্য নির্বাচিত যমজ দুই ভাই মাফী ও শাফী  » «   আলোকিত দেশ গঠনে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই – প্রতিমন্ত্রী মান্নান  » «   বিশ্বনাথে ট্রাক ড্রাইভারকে মারধর করার অভিযোগ : এমপির বিরুদ্ধে মিছিল-পাল্টা মিছিল  » «   বিশ্বনাথে প্রবাসীর উদ্যোগে হুইল চেয়ার ও সেফটি জ্যাকেট বিতরণ  » «   বিশ্বনাথে বিএনপি নেতা আব্দুল হাই গ্রেফতার  » «   বিশ্বনাথে পূজা মন্ডপে এমপি ইয়াহইয়া চৌধুরী সংবর্ধিত ও বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন  » «   পিস্তল’সহ বিশ্বনাথের যুবক গ্রেফতার  » «  

বালাগঞ্জের স্কুলছাত্রী ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামীর আত্মসমর্পণ

বালাগঞ্জ প্রতিনিধি :: ঘটনার প্রায় একমাস পর বালাগঞ্জের ৭ম শ্রেণির স্কুলছাত্রী ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামী আরিফ মিয়া (২০) গত বৃহস্পতিবার সিলেটের আদালতে আত্মসমপর্ণ করেছে বলে সংবাদ পাওয়া গেছে। সে বালাগঞ্জ সদর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য স্থানীয় সিরিয়া গ্রামের আশিক মিয়ার পুত্র। বালাগঞ্জ থানার অফিসার ইন-চার্জ এসএম জালাল উদ্দিন এ ব্যাপারে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
এ বিষয়ে আলাপাকালে বালাগঞ্জ থানার অফিসার ইন-চার্জ এসএম জালাল উদ্দিন জানান, পুলিশের টানা অভিযানের মুখে ‘গণধর্ষণ মামলার আসামী আরিফ মিয়া (২০)’ বৃহস্পতিবার সিলেট জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (৮ম) আদালতে আত্মসমর্পণ করেছে। আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। তিনি জানান, আত্মসমর্পণকারী আরিফ মিয়াকে রিমান্ডে আনার ব্যাপারে আগামী রোববার আদালতে আবেদন জানানো হবে। মামলার অপর আসামী রোমন দাশকে ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা সদরের তয়রুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ওই ছাত্রী প্রতিদিনের মত স্কুলে যাওয়ার পথে গত ১০মার্চ সকালে প্রলোভন দেখিয়ে তাকে স্থানীয় নবীনগরস্থ রোমন দাশের বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আরিফ ও রোমন দু’বন্ধু মিলে কয়েক দফা ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। এরপর ছাত্রীটি বাড়ি ফিরে ঘটনার বিষয়ে অভিভাবকদের খুলে বলে। পরবর্তীতে তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত দু’জনের বিরুদ্ধে স্কুলছাত্রীর পিতা মো. রুহেল খান বাদী হয়ে বালাগঞ্জ থানায় গত ১১মার্চ একটি মামলা দায়ের করেন। দায়েরকৃত মামলা নম্বর ০৩। মামলায় অভিযুক্তরা হচ্ছে উপজেলার সিরিয়া গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আশিক মিয়ার পুত্র আরিফ মিয়া (২০) ও বর্তমানে বালাগঞ্জ উপজেলা সদরের নবীনগরে বসবাসরত হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার দত্তগ্রামের উপেণ্ড দাশের ছেলে রোমন দাশ (১৮)।
এ ঘটনায় এলাকায় তিব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। ইতোমধ্যে গত ১৩মার্চ তয়রুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহপাঠী শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে বালাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে স্বারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। ঘটনার সময় মোবাইলে ধর্ষণের ভিডিওচিত্র ধারণের ব্যাপারেও স্কুলছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ রয়েছে। আলোচিত এ ঘটনার প্রায় ১মাস পরও জড়িত সকল অপরাধীদের গ্রেফতার ও ভিডিওচিত্র উদ্ধার না হওয়ায় সচেতন মহলে ক্ষোভ বিরাজ করছে। এলাকাবাসী ধর্ষকদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

am-accountancy-services-bbb-1

সর্বশেষ সংবাদ