শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ সংবাদ
বিশ্বনাথ ব্লাড সোসাইটি’র সেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি পালিত  » «   বিশ্বনাথে সাজ্জাদুর রহমান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস পালন  » «   সবাইকে শতভাগ খাঁটি দেশ প্রেমিক হতে হবে -শফিক চৌধুরী  » «   শ্রদ্ধা আর ভালবাসায় বিশ্বনাথে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস পালন  » «   বিশ্বনাথে গাড়ি দূর্ঘটনায় যুবক নিহত  » «   বিশ্বনাথের রামপাশায় তাফসীরুল কুরআন সংস্থা’র উদ্যেগে ফ্রি খতনা প্রদান  » «   বিশ্বনাথে ১৩২টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্টুডেন্ট কাউন্সিল নির্বাচন সম্পন্ন  » «   উপজেলা নির্বাচন : বিশ্বনাথের ৭ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল, ১৫ প্রার্থীর বৈধ  » «   বিশ্বনাথের ১০টি হাওর-খাল পুনঃখননের দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান  » «   বিশ্বনাথে সিদ্ধ বকুলতলায় অন্তর্ধান মহোৎসবে মানুষের ঢল  » «   বিশ্বনাথে শিক্ষার্থীদের মাঝে স্কুল ড্রেস-ব্যাগ-ছাতা বিতরণ করলেন শফিক চৌধুরী  » «   বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩ পদে ২২ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল  » «   বিশ্বনাথে ভাইস-চেয়াম্যান প্রার্থী জুবেল আহমদের মনোনয়নপত্র জমা  » «   বিশ্বনাথে ভাইস-চেয়াম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী ফখরুল আহমদ  » «   বিশ্বনাথে চেয়ারম্যান প্রার্থী সুহেল আহমদ চৌধুরীর মনোনয়নপত্র জমা  » «  

বালাগঞ্জের স্কুলছাত্রী ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামীর আত্মসমর্পণ

বালাগঞ্জ প্রতিনিধি :: ঘটনার প্রায় একমাস পর বালাগঞ্জের ৭ম শ্রেণির স্কুলছাত্রী ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামী আরিফ মিয়া (২০) গত বৃহস্পতিবার সিলেটের আদালতে আত্মসমপর্ণ করেছে বলে সংবাদ পাওয়া গেছে। সে বালাগঞ্জ সদর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য স্থানীয় সিরিয়া গ্রামের আশিক মিয়ার পুত্র। বালাগঞ্জ থানার অফিসার ইন-চার্জ এসএম জালাল উদ্দিন এ ব্যাপারে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
এ বিষয়ে আলাপাকালে বালাগঞ্জ থানার অফিসার ইন-চার্জ এসএম জালাল উদ্দিন জানান, পুলিশের টানা অভিযানের মুখে ‘গণধর্ষণ মামলার আসামী আরিফ মিয়া (২০)’ বৃহস্পতিবার সিলেট জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (৮ম) আদালতে আত্মসমর্পণ করেছে। আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। তিনি জানান, আত্মসমর্পণকারী আরিফ মিয়াকে রিমান্ডে আনার ব্যাপারে আগামী রোববার আদালতে আবেদন জানানো হবে। মামলার অপর আসামী রোমন দাশকে ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা সদরের তয়রুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ওই ছাত্রী প্রতিদিনের মত স্কুলে যাওয়ার পথে গত ১০মার্চ সকালে প্রলোভন দেখিয়ে তাকে স্থানীয় নবীনগরস্থ রোমন দাশের বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আরিফ ও রোমন দু’বন্ধু মিলে কয়েক দফা ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। এরপর ছাত্রীটি বাড়ি ফিরে ঘটনার বিষয়ে অভিভাবকদের খুলে বলে। পরবর্তীতে তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত দু’জনের বিরুদ্ধে স্কুলছাত্রীর পিতা মো. রুহেল খান বাদী হয়ে বালাগঞ্জ থানায় গত ১১মার্চ একটি মামলা দায়ের করেন। দায়েরকৃত মামলা নম্বর ০৩। মামলায় অভিযুক্তরা হচ্ছে উপজেলার সিরিয়া গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আশিক মিয়ার পুত্র আরিফ মিয়া (২০) ও বর্তমানে বালাগঞ্জ উপজেলা সদরের নবীনগরে বসবাসরত হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার দত্তগ্রামের উপেণ্ড দাশের ছেলে রোমন দাশ (১৮)।
এ ঘটনায় এলাকায় তিব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। ইতোমধ্যে গত ১৩মার্চ তয়রুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহপাঠী শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে বালাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে স্বারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। ঘটনার সময় মোবাইলে ধর্ষণের ভিডিওচিত্র ধারণের ব্যাপারেও স্কুলছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ রয়েছে। আলোচিত এ ঘটনার প্রায় ১মাস পরও জড়িত সকল অপরাধীদের গ্রেফতার ও ভিডিওচিত্র উদ্ধার না হওয়ায় সচেতন মহলে ক্ষোভ বিরাজ করছে। এলাকাবাসী ধর্ষকদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

am-accountancy-services-bbb-1

সর্বশেষ সংবাদ