নির্মাণ হচ্ছে রোহিঙ্গাদের নিয়ে চলচ্চিত্র
বৃহস্পতিবার, ১৬ আগষ্ট, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ সংবাদ
যথাযোগ্য মর্যাদায় বিশ্বনাথে জাতীয় শোক দিবস পালিত  » «   যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালিত  » «   লালাবাজারে সড়ক দুর্ঘটনায় বিশ্বনাথের পিকআপ চালক ও হেলপার নিহত  » «   ঘাতক নূরের রায় কার্যকর না হওয়ায় আমরা সিলেটবাসী লজ্জিত -শফিক চৌধুরী  » «   বিশ্বনাথে রামপাশা-বৈরাগী-সিংগেরকাছ বাজার সড়কের বেহাল দশা : জনদূর্ভোগ  » «   বিশ্বনাথে জাতীয় শোক দিবসে পুষ্পস্তবক অর্পন ও র‌্যালী  » «   শোকাবহ ১৫ আগস্ট আজ  » «   বিশ্বনাথে রাস্তায় গেইট নির্মাণ নিয়ে দু’পক্ষের বিরোধ  » «   বিশ্বনাথ ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণে প্রশাসনিক অনুমোদন  » «   শিক্ষা প্রতিষ্টানে মাদক বিরোধী কমিটির আলোচনা সভা  » «   বিশ্বনাথে উপজেলা আইন-শৃংখলা কমিটির সভা  » «   বিশ্বনাথে ব্রাক এর ‘উপজেলা মাইগ্রেশন ফোরাম মিটিং’ অনুষ্ঠিত  » «   দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে আ’লীগের বিকল্প নেই -শফিক চৌধুরী  » «   পবিত্র হজ্ব পালন করতে স্বপরিবারে সৌদি আরব গেলেন মিছবাহ উদ্দিন  » «   বিশ্বনাথে উদ্ধারকৃত ২২টি গরু সনাক্ত করতে থানায় জনতার ভিড়  » «  

নির্মাণ হচ্ছে রোহিঙ্গাদের নিয়ে চলচ্চিত্র

84975_rohingaবিনোদন ডেস্ক :: মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা শরণার্থী যারা তারা রোহিঙ্গা নামেই পরিচিত। তাদের জীবনযাপনসহ নানা বিষয় নিয়ে এবার ছবি নির্মাণ করছেন সৈয়দ অহিদুজ্জামান ডায়মন্ড। ছবির নাম ‘রোহিঙ্গা’। পরিচালনার পাশাপাশি এ ছবির কাহিনী, চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন তিনি। গতকাল মঙ্গলবার ছবিটির শুটিং হয়েছে নাফ নদ, শাহপরীর দ্বীপ আর টেকনাফে। আর আজ বুধবার সকাল থেকে শুটিং হচ্ছে উখিয়া ক্যাম্পে। এখানে চিত্রনায়িকা আরশী অভিনয় করছেন। তিনি মানবজমিনকে বলেন, এখানকার পরিস্থিতি দেখে ভয়ই পেয়েছি। এরইমধ্যে শুটিং করছি। বেশ চ্যালেঞ্জিং একটা চরিত্র। যেকোনো দৃশ্য করার আগে মহড়াও দিতে হচ্ছে আমাকে। উখিয়া ক্যাম্পের মানুষগুলোর মুখ মলিন, চেহারায় অনিশ্চয়তার ছাপ সেগুলো থাকছে ছবির গল্পে। ছবিতে বাস্তব ঘটনাগুলো ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করছেন পরিচালক ডায়মন্ড ভাই। আশা করি, দর্শক ছবিটি পছন্দ করবেন। উখিয়া ক্যাম্পে আরও তিন দিন শুটিং হবে। এরপর মিয়ানমারের সেট তৈরি করা হবে। ওখানে মিয়ানমারের দৃশ্যগুলো ধারণ করা হবে। ছবিটি যৌথভাবে প্রযোজনা করছেন সৈয়দ অহিদুজ্জামান ডায়মন্ড ও শবনম শেহনাজ চৌধুরী। উল্লেখ্য, সৈয়দ অহিদুজ্জামান ডায়মন্ড নাটকের পরিচালক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। পরবর্তী সময়ে তিনি চলচ্চিত্র পরিচালনা করেন। তার পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র ‘নাচোলের রানী’ (২০০৬)। ২০০৯ সালে মুক্তি পায় তার দ্বিতীয় চলচ্চিত্র ‘গঙ্গাযাত্রা’। এতে অভিনয় করেন ফেরদৌস, পপি, সিমলা প্রমুখ। ২০১০ সালে তিনি ‘নাচোলের রানী’ ও ‘গঙ্গাযাত্রা’ চলচ্চিত্র পরিচালনার জন্য কলকাতার অতন্দ্র সাংস্কৃতিক সংসদ থেকে অতন্দ্র পদক লাভ করেন। ‘গঙ্গাযাত্রা’ চলচ্চিত্রের জন্য ২০১১ সালে শ্রেষ্ঠ পরিচালক ও শ্রেষ্ঠ কাহিনীকার বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান তিনি। চলচ্চিত্রটি ২০১৪ সালে বাচসাস পুরস্কারে ৮টি বিভাগে পুরস্কার পায়। ২০১৩ সালে জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে পদ্মাপাড়ের জেলেদের জীবন-জীবিকার বিপর্যয়ের গল্প নিয়ে তিনি নির্মাণ করেন ‘অন্তর্ধান’। ছবিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন ফেরদৌস, নিপুণ প্রমুখ। চলচ্চিত্রটি একটি বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছে। সবশেষ ২০১৬ সালে তিনি নির্মাণ করেছেন ‘বাষ্পস্নান’। এতে অভিনয় করেছেন কলকাতার সমদর্শী দত্ত আর বাংলাদেশের আইরিন সুলতানা।

am-accountancy-services-bbb-1

সর্বশেষ সংবাদ