সোমবার, ১৮ জুন, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ সংবাদ
বিশ্বনাথে নেতাকর্মীদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করলেন এমপি ইয়াহ্‌ইয়া চৌধুরী  » «   দেশ-জাতি ও দলের জন্য ব্যক্তিস্বার্থ ত্যাগ করতে হবে -শফিক চৌধুরী  » «   ইলিয়াস সন্ধান আন্দোলনে আহত ও নিহতদের পরিবারকে অনুদান প্রদান  » «   বিশ্বনাথে নদী ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন ও গৃহহীনদেরকে ইলিয়াসপত্নী লুনার আর্থিক অনুদান প্রদান  » «   বিশ্বনাথ-ওসমানীনগরবাসীকে মুনতাসির আলীর ঈদ শুভেচ্ছা  » «   বিশ্বনাথ নিউজ ২৪ ডটকমের ঈদ স্মারক ‘উৎসব’র মোড়ক উন্মোচন  » «   অলংকারী ইউনিয়নের ১২শ লোকের মধ‌্যে ভিজিডি’র চাল বিতরণ  » «   বিশ্বনাথ বিএনপির সভাপতির উদ্যোগে ঈদের বস্ত্র বিতরণ করলেন লুনা  » «   সিলেট জেলা পরিষদ সদস‌্য রাজী চৌধুরীর ঈদ শুভেচ্ছা  » «   বিশ্বনাথ উপজেলা চেয়ারম‌্যান সুহেল চৌধুরী’র ঈদ শুভেচ্ছা  » «   তাহসিনা রুশদী লুনা’র ঈদ শুভেচ্ছা  » «   সাবেক এমপি শফিক চৌধুরী’র ঈদ শুভেচ্ছা  » «   এমপি ইয়াহ্‌ইয়া চৌধুরীর ঈদ শুভেচ্ছা  » «   আন্দোলনের মাধ্যমেই সরকারের পতন করতে হবে-তাহসিনা রুশদীর লুনা  » «   সমাজকে দারিদ্রমুক্ত রাখতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে-শফিকুর রহমান চৌধুরী  » «  

অপারেশন থান্ডারবোল্ট ও বিশ্বনাথের সন্তান জেনারেল নাঈম

asfakরফিকুল ইসলাম জুবায়ের :: সিলেটের এক আলোকিত জনপদ বিশ্বনাথ । নিজস্ব ইতিহাস ও ঐতিহ্যে আজ এ জনপদ বেশ সমৃদ্ধ । শত শত বছরের ঐতিহ্যবাহী এ জনপদে জন্ম হয়েছে অসংখ্য আলোকিত সন্তানের । যাদের জন্য এলাকাবাসী গর্বিত । তাদেরই একজন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাঈম আশফাক চৌধুরী । বিশ্বনাথের এই কৃতিসন্তান উপজেলার লামাকাজী ইউনিয়নের দিঘলী গ্রামের কৃতিসন্তান অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক ও সরকারী কর্মকর্তা মরহুম আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী ও ডাঃ আক্তারুন নেছার ৭ম পুত্র তিনি। যিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল পদে কর্মরত।

গুলশানের রেস্টুরেন্টে সন্ত্রাসী হামলায় ২০ জন নিহত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে আন্ত:বাহিনী জনসংযোগ অধিদপ্তর বা আইএসপিআর।

গতকাল এক প্রেস ব্রিফিংয়ে মিলিটারি অপারেশনন্সের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাঈম আশফাক চৌধুরী বলেন, জিম্মি উদ্ধারে শনিবার অভিযান শেষে ওই রেস্তোরাঁর ভেতরে ২০টি মৃতদেহ পাওয়া গেছে।

জিম্মি করার পর ধারালো অস্ত্র দিয়ে রাতেই তাদের হত্যা করা হয় বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাঈম আশফাক বলেন, অভিযানকারীরা ভেতরে ঢোকার পর ২০ জনের মৃতদেহ পায়। এছাড়াও অভিযানে ৬ জন হামলাকারী নিহত হয়েছে এবং একজনকে আটক করা হয়েছে বলে জানান তিনি। এ ছাড়া গতকাল রাতে পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সহকারী কমিশনার রবিউল ইসলাম ও বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাউদ্দিন সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন।

সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে ঐ অভিযানটির নাম দেয়া হয়েছে অপারেশন থান্ডারবোল্ট। সেনা কমান্ডোরা ছাড়াও নৌ, পুলিশ, বিজিবি এবং র্যাবের সদস্যরা অংশ নেন। গুলশানের হোলি আর্টিজান রেস্টুরেন্টে সন্ত্রাসী হামলা এবং জিম্মি সংকটের প্রায় ১১ ঘণ্টা পর সকাল সাড়ে সাতটার পর কমান্ডো অভিযান শুরু হয়। আইএসপিআর বলছে, অভিযানে ১৩ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।রেস্টুরেন্ট থেকে উদ্ধারকৃতদের মধ্যে এক জন জাপানী এবং দুই জন শ্রীলংকান নাগরিক রয়েছেন।

am-accountancy-services-bbb-1

সর্বশেষ সংবাদ